View Question 768 views

Subject : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা বাড়াতে কি পদক্ষেপ নিবেন?

Avatar

Written By : Mhafezul islam Akkaj

মাননীয়, এমপি মহোদয় । আসসালামু আলাইকুম, শুভেচ্ছা নিবেন। আমি আপনার নির্বাচনী এলাকা সাতক্ষীরা জেলার সদর উপজেলার মাহফিজুল ইসলাম আককাজ। আমি আমার এমপি ডট'কম এর মাধ্যমে আপনার কাছে জানতে চাই, গত ৭-৯ মে ২০১৭ তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সকল সংসদ সদস্যদের নিয়ে "সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সংসদ সদস্যদের করণীয় প্রশিক্ষণ কর্মশালা" অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবং প্রশিক্ষণ কর্মশালার পরে সকল সংসদীয় স্থায়ী কমিটির নেতৃবৃন্দ ও সকল সংসদ সদস্যদেরকে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, শুধু কাজ করলে হবে না, মানুষের জন্য কি কাজ করা হচ্ছে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করতে হবে। প্রতিদিন সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড গণমাধ্যমে বেশী বেশী প্রচার করে সক্রিয় হয়ে কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন। আমার প্রশ্ন হলো, সজীব ওয়াজেদ জয়ের বক্তব্যের ধারনায় আপনি আপনার নির্বাচনী এলাকায় আপনার সংসদীয় স্থায়ী কমিটির মাধ্যমে কোন প্রাথমিক পরিকল্পনা নিয়েছেন বা কি কি কর্মোদ্যোগ গ্রহন করবেন ?

ধন্যবাদ সহ আপনার নির্বাচনী এলাকার- মাহফিজুল ইসলাম আককাজ।

Avatar

Written By : REFAT AMIN -রিফাত আমিন

Public

ধন্যবাদ প্রশ্নকর্তাকে, সময়োপযোগী একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন করার জন্য।

আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুপুত্র, তারুণ্যের অহংকার সজীব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশের জন্য একজন আধুনিকতার রুপক আমরা তারই হাত ধরে তার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলছি। ইতিমধ্যে প্রত্যেকটি বিভাগে নিরাপত্তার স্বার্থে সার্কিট ক্যামেরা (সি.সি) এর আওতায় আনা হয়েছে। স্বল্প পরিসরে অপরাধ সংঘটিত হলেও তা আইনের আওতায় আসছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রবাসে থাকাকালীন সময়েও তার মেধা, মনন ও চিন্তাধারা আমাদেশ দেশ ও দেশের মানুষের উন্নয়নের জন্য। তার প্রমান আপনারা ইতিমধ্যে যথার্থই পেয়েছেন। সে আমাদের এই বাংলাদেশকে ডিজিটালাইজড করার জন্য নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তার বিচক্ষণ বুদ্ধিমত্তা, জ্ঞান তদুপরি জ্ঞানশক্তি ব্যবহার করে দেশের সর্বস্তরের জনগনকে নিরাপত্তার চাদরে বেষ্টিত করে রেখেছে অপরদিকে দেশকে সমৃদ্ধ ও উন্নতির পথে নিয়ে যাচ্ছেন।

বেশ কিছুদিন আগে সমাপ্ত হওয়া সম্মেলনে তিনি আমাদেরকে আদেশ দিয়েছেন আমাদের প্রত্যেকটি কাজ যেন ডিজিটালাইজড ও অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসি। আমার দায়িত্বপ্রাপ্ত স্টান্ডিং কমিটি নারী-শিশু খাতে আমি আমার মনোভাব অভিব্যক্তি প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এই মর্মে- আসছে আগামী ৩০ শে মে ২০১৭ মহান জাতীয় সংসদের অধিবেশনে আমি প্রস্তাব করবো যে, আমাদের প্রতিটা জেলাতে এই খাতে আমাদের যে প্রতিষ্ঠান গুলো নিয়োজিত আছে তাদেরকে সি.সি ক্যামেরা তথাকথিত আইপি ক্যামেরার আওতায় আনার জন্য। যাতে করে আমরা দেখতে পাই কোনরকম বিশৃঙ্খলা ও নিয়মিত সেবা পাচ্ছে কি না তার ব্যবস্থা করতে পারি।

ধন্যবাদ আমার এমপি ডট'কম সহ আমার নির্বাচনী এলাকার সবাইকে।