View Question 625 views

Subject : হুমকির মুখে চৌমুহনী খাল

Avatar

Written By : Arafat Uddin

মাননীয় এমপি মহোদয়,

আমার সালাম নিবেন। 

বেগমগঞ্জ প্রায় শত বছর পূর্বে ছাতারপাইয়া, আটিয়াবাড়ী, চন্দ্রগঞ্জ খাল ও ফেনী নদীর মোহনা দিয়ে নৌ-পথে বাণিজ্যকেন্দ্র চৌমুহনীর যাত্রা শুরু হয়। সড়ক ব্যবস্থা ভালো না থাকায় ওইসময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসহ বিভিন্ন ধরনের মালামাল আসত নৌ-পথে চৌমুহনী খাল দিয়ে। বর্তমানে দখলদারদের দখলের মহড়ায় এ খালটি সংকুচিত হয়ে ছোট ড্রেনে পরিনত হয়েছে। যার ফলে একটু বৃষ্টি হলে পানিতে আটকা পড়ে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে, এক সময় বৃহত্তর নোয়াখালী (নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী) ও কুমিল্লাবাসীর নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য পালতোলা নৌকায় নিয়মিত চৌমুহনী খাল দিয়ে আসত। কিন্তু বর্তমানে চৌমুহনী সরকারি এস.এ কলেজের সামনে থেকে দক্ষিণ বাজার পর্যন্ত চলছে খাল দখলের প্রতিযোগিতা। প্রতিদিন স্থানীয় ও গোলাবাড়িয়া বাজারের কাঁচামাল ব্যবসায়ীরা ময়লা-আবর্জনা ফেলে খালটি ভরাট করে প্রতিষ্ঠান (দোকন) গড়ে তুলছে।

অপরদিকে চৌমুহনী পৌরসভার পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা তাদের নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা আবর্জনা না পেলে প্রতিনিয়ত এই খালের মধ্যে পেলে যাচ্ছে। যার ফলে আরো দ্রুত খালটি ভরাট হয়ে যাচ্ছে।

ফলে একদিকে বিলুপ্ত হচ্ছে চৌমুহনীর বিশাল বাণিজ্যিক সম্ভাবনা। অন্যদিকে চৌমুহনী বাজারের পানি নিষ্কাষণ বন্ধ হয়ে পরিবেশ নষ্ট ও বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতার কষ্টে নিপতিত করছে বিশাল এই জনগোষ্ঠীকে।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, একসময়ের বিখ্যাত বিশালাকার প্রায় ১০০মিটার প্রস্থ এ খালে ছিল প্রবল স্রোত। কিন্তু দখলদারদের বেপরোয়া দখলে বর্তমানে ওই খালটি সংকুচিত হয়ে ছোট ড্রেন ও নালায় পরিণত হয়েছে। যার প্রস্থ ১০/১২ মিটারে নেমে এসেছে। ফলে খালের অস্তিত্ব খঁজে পাওয়া মুশকিল হয়ে পড়েছে। দ্রুত খালটি দখলদারদের হাত থেকে মুক্তি পেয়ে তার হারানো প্রাণ ফিরে পাবে এমনই প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে কবে নাগাদ চৌমুহনী খাল খনন, ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার এবং প্রভাবশালীদের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে ঐতিহ্যবাহী চৌমুহনী বাজারের প্রাণ চৌমুহনী খাল কে দখল মুক্ত এবং পরিষ্কার করা হবে? 

আর এই খালে মাছের প্রজননের জন্যও পর্যাপ্ত উদ্যোগের প্রয়োজন রয়েছে।

বিনীত,

আরাফাত উদ্দিন

Avatar

Written By : Md. Mamunur Rashid Kiron -মোঃ মামুনুর রশীদ কিরন

Public

ধন্যবাদ আরাফাত উদ্দীনকে, আমার এমপি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ঐতিহ্যবাহী চৌমুহনী বাজারের গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা এবং চৌমুহনী বাজারের উপর দিয়ে প্রবাহিত খালের করুন দশা সম্পর্কে জানিয়ে প্রশ্নটি করার জন্য। ইতোমধ্যে বেগমগঞ্জে ২১ কি.মি. খালের খনন কাজ শেষ হয়েছে। আমি গত ৫ই মার্চ ২০১৭ ইং মহান জাতীয় সংসদে বেগমগঞ্জের নানাবিধ উন্নয়নের দাবী জানানোর সময় খাল খননের জোর দাবি জানিয়ে ছিলাম। আশা করি চৌমুহনী বাসীর অন্যতম দাবি বাস্তবায়ন সহ বেগমগঞ্জের জলবদ্ধতা নিরসনে চৌমুহনী বাজারের আশেপাশের খাল ও সংস্কারের অভাবে ভরাট হয়ে যাওয়া বেগমগঞ্জের অন্যান্য খাল সংস্কারে পানি উন্নয়ন বোর্ড সহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট বিভাগকে নিয়ে খাল খননের সার্বিক প্রয়াস চলমান থাকবে।

ধন্যবাদান্তে,

(মোঃ মামুনুর রশীদ কিরন)
সংসদ সদস্য
২৭০, নোয়াখালী-৩
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ