Avatar
AmarMP Admin,

জমে উঠেছে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের উপনির্বাচন, মূল লড়াইয়ে আওয়ামী লীগ ও জাপা

আমার এমপি রিপোর্ট ॥ গাইবন্ধা-১(সুন্দরগঞ্জ) আসনের জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচন জমে উঠেছে।  চলছে রাতদিন প্রচার-প্রচারণা। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রার্থী ও সমর্থকদের এই ব্যস্ততা বেড়েছে কয়েকগুণে। কোন কোন প্রার্থী প্রচার চালাচ্ছেন রাতভোর। শনিবার গভীর রাতেও তাদের ব্যস্ততা চোখে পড়েছে আমার এমপি ডটকমের।

জানা গেছে, উঠান বৈঠক, মেসেজ দেয়াসহ নানা প্রতিশ্রুতির মধ্যে দিয়ে ভোটারদের মন জয়ের তীব্র প্রতিযোগিতায় নেমেছেন প্রার্থীরা। একই সঙ্গে একে অপরের বিরুদ্ধে তুলে ধরছেন নানা অভিযোগ। পোস্টার ছিড়ে ফেলা, নিয়ম ভঙ্গ করে বড় বড় প্রতীক বানিয়ে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ এরমধ্যে অন্যতম।

 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাত প্রার্থীর মধ্যে মূল লড়াই হবে সরকার দলীয় প্রার্থী গোলাম মোস্তফা আহমদ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী শামীম হায়দার পাটোয়ারীর মধ্যে। নির্বাচনে এই দুই প্রার্থীর তৎপরতাই বেশি। তাদের প্রচার প্রচারণাই চোখে পড়ার মতো। আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মোস্তফা আহমেদ দাবি করেন পূর্বাঞ্চলের পাঁচটি ইউনিয়নে ভোটারদের বিপুল সমর্থন রয়েছে তার। এছাড়া গোটা উপজেলায় রয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থক হাজার হাজার ভোটার। একই সঙ্গে তিনি ২২ বছর ধরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এই সময়ে তিনি কারো কোন ক্ষতি করেন নি। বরং মানবতাকমী মানব হয়ে পাঁশে দাঁড়িয়েছেন বিপদগ্রস্থ ও দু:স্থদের। ইউপি চেয়ারম্যান থাকাকালীন হতদরিদ্রদের সর্বাধিক সুযোগ সুবিধা দিয়েছেন। ব্যক্তিগত ভাবে ক্লিন ইমেজের অধিকারী এই প্রার্থী মনে করেন শুধু আওয়ামী লীগের নয়, সর্বস্তরের মানুষের ভোট পাবেন তিনি।

অন্যদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী শামীম হায়দার পাটোয়ারী বেশ তরুণ। তিনি তারুণ্যকে পূঁজি করে এগিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়াও তিনি দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের ঘনিষ্ঠজন। তিনি চেয়ারম্যনের আইনবিষয়ক উপদেষ্টা। এছাড়াও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা এক সময় ছিল জাতীয় পার্টির দুর্গ। সুন্দরগঞ্জের অস্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে নিরাপত্তা ও শান্তি স্থাপনে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়ায় সাধাণ ভোটাররা তাকে বেঁছে নেবেন বলে মনে করেন এই প্রার্থী।

আমার এমপি ডটকমের করা এক প্রশ্নের উত্তরে সরকার দলীয় ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম মোস্তফা আহমদ বলেনঃ

৪৮ বছরের রাজনৈতিক জীবনে আমি কোন দালালী করিনি, কারো কোন ক্ষতি করি নি। এই সময়ে আমি অসংখ্য মানুষের উপকার করেছি। বিপদগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করেছি। ইউপি চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে মানবিক কারণে হতদরিদ্রদের সর্বাধিক সুযোগ সুবিধা দিয়েছি। ফলে দলীয় ভোটের পাশাপাশি ক্লিন ইমেজের কারণে সর্বস্তরের মানুষের ভোট পাবো বলে আশা করি।

একই প্রশ্নের উত্তরে জাপার প্রার্থী শামীম হায়দার পাটোয়ারী আমার এমপি ডটকমকে বলেনঃ

বর্তমানে ভোটারদের ৭০ শতাংশই তরুণ। তাদের শিক্ষিত ও আধুনিক প্রার্থীর দিকে আকর্ষণ থাকাটা স্বাভাবিক। এছাড়া আমি অসংখ্য টক-শোতে অংশ নেওয়ায় সুন্দরগঞ্জের পরিচিত মুখ। একই সঙ্গে আমি একজন ব্যরিষ্টার, উদারমনা ও প্রগতিশীল রাজনীতিবিদ। সুন্দরগঞ্জে রাজনৈতিক অস্থিরতা বিদ্যমান থাকায় আমি নিরাপত্তা ও শান্তি স্থাপনে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, যা ভোটারদেরকে আকর্ষণ করছে। বর্তমানে মানুষ উন্নয়কামী। পারিবারিকভাবে এলাকায় অনেক প্রতিষ্ঠান করেছি, যে কারণে ভোটারদের আমাকে বেঁছে নেওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

আসনটিতে অন্যান্য প্রার্থীরা হচ্ছেন- জাসদের মোহাম্মদ আলী প্রামাণিক (মশাল), জেপির ওয়াহেদুজ্জামান সরকার বাদশা (সাইকেল), গণফ্রন্টের শরিফুল ইসলাম (মাছ), এনপিপির জিয়া জামান খান (আম) ও  স্বতন্ত্র প্রার্থী মোস্তফা মোহসিন (আপেল)। তাদের প্রচার প্রচারণা তেমন চোখে পড়ছে না। ফলে সাধারণ ভোটারদের বিশ্বাস আগামী ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির মধ্যেই মূল প্রতিদ্বন্ধিতা হবে। গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর দুর্বৃত্তদের গুলিতে এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন নিহত হলে আসনটি শূন্য হয়।  

Golam Mustofa Ahmed -গোলাম মোস্তফা আহমদ Shameem Haider Patwary -শামীম হায়দার পাটোয়ারী
#Gaibandha #Bangladesh #Bangladesh Mp #গাইবান্ধা #সুন্দরগঞ্জ #আমারএমপি #আমারএমপি ডট কম #Amarmp #Amarmp.com

3540 views